fbpx
Jun 7, 2020
847 Views

কীভাবে আপনার ল্যাপটপের ব্যাটারীর আয়ু বাড়ানো যায়

Written by

বর্তমান ডিজিটালাইজড মার্কেটে একটি ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ বিহীন জীবন কল্পনা করাটা যেন দুর্লভ হয়ে পড়েছে। শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুণ প্রজন্ম এবং চাকুরীজীবী, ব্যবসায়ী, ফ্রীলান্সার সকলেই যেন নিজেদের কাজ এবং বিনোদন এর জন্য বেছে নিয়েছেন ল্যাপটপ নির্ভর জীবন। আর প্রয়োজনের সময় ল্যাপটপে চার্জ না থাকা যেন নিত্যদিনের সমস্যা। সত্য বাস্তবতা হল এটাই যে, এই ব্যাস্ত জীবনে কাজের সময়  সারাক্ষন ল্যাপটপের চার্জের দিকে তাকিয়ে আর খেয়াল থাকে না কখন শূন্যে নেমে এসেছে ব্যাটারি। তাই, সবসময় চেষ্টা করা উচিত ল্যাপটপের ব্যাটারি ২০% নেমে এলেই আবার চার্জে বসিয়ে দেওয়ার। ব্যাটারি জিরোতে নেমে আসার আগেই ল্যাপটপে চার্জ দেওয়া জরুরি।

কম্পিউটার শিল্পে পরিকল্পিত অপ্রচলতা সম্পর্কে যদি জানার চেস্টা করা হয় যে একটি ল্যাপটপ বা পিসি কত দিন স্থায়ী হওয়া উচিত?

বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়ে থাকে পাঁচ বছর ভাল ইনিংস হিসাবে বিবেচিত হতে পারে। এটি একটি ডেস্কটপ কম্পিউটারের জীবনকাল হতে পারে (তিন থেকে পাঁচ বছর)। এদিকে ল্যাপটপের আয়ু নির্ধারণ করা কঠিন, কারণ তারা প্রায়শই নষ্ট হয়ে যাওয়ার আগে জঙ্ক হয়ে থাকে। এটি পরিকল্পিত অপ্রচলতার কারণে রয়েছে – বিপণন কৌশলগুলির দ্বারা প্রস্তুতকর্তাদের দ্বারা চালিত একটি চালচলন যাতে তাড়াতাড়ি একটি পণ্যের সাথে আমরা প্রেমে পড়ে যায়।

আরও ভাল সফ্টওয়্যার পাওয়ার ইচ্ছা থাকলে আরও ভাল মেশিন লাগবে।

এক্ষেত্রে ল্যাপটপের আয়ুর সাথে ব্যাটারির আয়ু বৃদ্ধি প্রচেষ্টা অত্যন্ত জরুরী।

অধিকাংশ ব্যবহারকারীগ্ণ চার্জ শেষ হয়ে যাবে ভেবে ল্যাপটপের চারজার লাগিয়ে রাখেন যেটা ব্যাটারীর জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

কানাডার ক্যাডেক্স ইলেক্ট্রনিক্সের প্রধান নির্বাহী ইসিডোর ব্যাচম্যানের মতে, ল্যাপটপের লিথিয়াম –পলিমার ব্যাটারিতে পূর্ণ চার্জ হবার আগেই তা খুলে ফেলা উচিত। ব্যাটারিতে বড়জোর ৮০ ভাগ চার্জ থাকাটাই ভালো।

ব্যাচম্যান আরও বলেন, ব্যাটারীতে চার্জ দেয়া এবং চার্জ খালি করার বিষয়টি বিদ্যমান থাকলেই ব্যাটারী ভালো থাকার সম্ভাবনা বাশী থাকে।

অতিরিক্ত চার্জে ব্যাটারীর কোষগুলি ফুলে ওঠে এবং ব্যাটারী নষ্ট হয়ে যায়।

আপনার ল্যাপটপের ব্যাটারীর আয়ু বাড়াবেন যেভাবেঃ

যাদের ল্যাপটপ কম্পিউটারের মধ্যে সবচেয়ে সাধারণ অভিযোগগুলির মধ্যে একটি হ’ল ব্যাটারিটি যথেষ্ট দীর্ঘস্থায়ী হয় না। আপনার ব্যাটারি থেকে খুব বেশি কিছু পেতে এখানে কয়েকটি টিপস যুক্ত করা হলঃ

১) ল্যাপটপ পুরোপুরি চার্জযুক্ত রাখা যাবে না।

যদি আপনি কয়েক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে আপনার কম্পিউটারকে অব্যবহৃত অবস্থায় ছেড়ে দিতে চলেছেন তবে আপনার ব্যাটারির জন্য এটি প্রায় 40% চার্জ করা ভাল। যদিও মনে হয় পুরো চার্জটি সর্বোত্তম হতে পারে, আপনি যখন স্টোরেজটি বাইরে নিয়ে যাবেন তখন এটি আপনার ব্যাটারিটির কিছুটা ক্ষমতা হ্রাস করতে পারে। এছাড়াও, স্টোরেজ চলাকালীন ব্যাটারির কোনও ক্ষতি এড়াতে এটি একটি শীতল এবং শুকনো জায়গায় সংরক্ষণ করুন।আশা করি এই টিপসগুলি আপনাকে আপনার ল্যাপটপের ব্যাটারি থেকে সর্বাধিক উপকার করতে সহায়তা করবে। ক্ষয় হওয়ার লক্ষণীয় স্তর হওয়ার আগে বেশিরভাগ ব্যাটারির জীবন প্রায় ২-৩ বছর হবে বলে আশা করা যায়। এই টিপসটি আপনাকে প্রতিটি চার্জে আপনার ব্যাটারির আয়ু বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করবে।

increase laptop battery life

অতিরিক্ত চার্জ দেয়া থেকে বিরত থাকুন

২) Wi-Fi বন্ধ রাখুনঃ

আপনার ওয়াই-ফাই সংযোগ বন্ধ করা আপনার ব্যাটারির জীবনে সময় যোগ করতে সহায়তা করতে পারে। প্রথমত, এটি আপনার ওয়াই-ফাই অ্যান্টেনাটি শক্তি দেয় যা ব্যাটারিটি ড্রেন করে। এছাড়াও, অনেকগুলি সাধারণ অনলাইন ক্রিয়াকলাপ (যেমন এর মতো ইউটিউব ভিডিওগুলি দেখার জন্য) আপনার কম্পিউটারে মোটামুটি কর আদায় করছে এবং অতিরিক্ত শক্তির প্রয়োজন। আপনার ব্যাটারি থেকে সামান্য অতিরিক্ত জীবন পেতে আপনার Wi-Fi বন্ধ করুন।

৩) ঠান্ডা স্থানে সংরক্ষণ করুনঃ

যখন কোনও ব্যাটারি অত্যন্ত উত্তপ্ত হয়ে ওঠে, তখন এটি কেবল দ্রুতই স্রোত করে না, তবে এটি সম্ভাব্যভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে এবং পুরোপুরি চার্জ করার ক্ষমতা হারাতে পারে। যদিও এটি সত্য যে কোনও ব্যাটারি সময়ের সাথে স্বাভাবিকভাবেই তার সম্পূর্ণ ক্ষমতা হারাবে, তাপ প্রক্রিয়াটি ত্বরান্বিত করে। আপনার কম্পিউটারকে রোদে গাড়ির মতো গরম জায়গায় রেখে যাওয়া এড়িয়ে চলুন। এছাড়াও, আপনার কম্পিউটারে বায়ু ভেন্ট অবরুদ্ধ না হয়েছে তা নিশ্চিত করুন। আপনার কম্পিউটারটি নিয়মিতভাবে 100o এফ-তে যেতে পারে এবং এটিকে নিজেই শীতল করতে সক্ষম হওয়া প্রয়োজন। বায়ু ভেন্টকে অবরুদ্ধ করা এয়ার ফ্লোকে বাধা দিতে পারে এবং আরও উচ্চ তাপমাত্রায় নিয়ে যেতে পারে।

৪)  অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রামগুলি বন্ধ রাখুনঃ

আপনি আপনার কম্পিউটারকে যত বেশি করতে বলছেন, আপনার কম্পিউটারগুলি আপনার চাহিদা মেটানোর জন্য তত বেশি শক্তি প্রয়োজন। আপনার ব্যাটারির টোল হ্রাস করতে, আপনি সক্রিয়ভাবে ব্যবহার করছেন না এমন সমস্ত প্রোগ্রাম বন্ধ করার চেষ্টা করুন।

৫) ডিমান্ডিং অ্যাপস ব্যবহার করবেন নাঃ

প্রোগ্রামগুলি সকলেই সমানভাবে দাবি করে না। সিনেমা দেখা, সংগীত শুনতে এবং আরও জটিল প্রোগ্রামগুলি (যেমন ফটো এবং ভিডিওগুলি ব্যবহার করতে ব্যবহৃত হয়) মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ডের মতো কোনও কিছুর চেয়ে দ্রুত ব্যাটারি খেতে পারে। যদি আপনি পারেন তবে ব্যাটারি পাওয়ারের উপর নির্ভর করার সময় সরল করার চেষ্টা করুন।

৬) স্ক্রিনটি ম্লান রাখুনঃ

আপনার স্ক্রিনটি একটি বিশাল ব্যাটারি ড্রেনার। আপনার স্ক্রিনটি যতটা কম কম ততটুকুই এটি যুক্তিসঙ্গতভাবে দেখতে ভাল হতে পারা করুন। আপনার পর্দা হালকাকরার জন্য আপনার ব্যাটারির চার্জের দৈর্ঘ্য উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করা উচিত। প্রতিটি ল্যাপটপ আলাদা হলেও, উজ্জ্বলতা সামঞ্জস্য করা সাধারণত একটি বোতাম চাপায় যা এতে একটি সূর্যের ছবি থাকে তা সম্পাদন করে। আমার ম্যাকবুক এ এফ 1 কীতে একটি সূর্যের সামান্য আইকন এবং এফ 2 কীতে আরও একটি বড় সূর্য রয়েছে। আমি যখন সামান্য রোদকে ধাক্কা দিই, তখন পর্দা ঝাপসা হয়ে যায়। কিছু পিসিতে একই সূর্যের আইকনগুলি উপরে এবং নীচে তীরগুলিতে থাকে। আপনি যদি ফাংশন (এফএন) বোতামটি ধরে রাখেন এবং নীচের তীরটি চাপ দেন তবে স্ক্রিনটি আবছা হয়ে যাবে।

আমাদের ব্যাটারি-জীবন উন্নতির ট্যুরের প্রথম স্টপটি হ’ল উইন্ডোজ ব্যাটারি পারফরম্যান্স স্লাইডার, যা উইন্ডোজ 10-এর সাম্প্রতিক সংযোজন। আপনার পিসি তৈরি করা সংস্থাটি ব্যাটারি স্লাইডারটি নিয়ন্ত্রণ করে ঠিক কোন সেটিংস নির্ধারণ করে।সঠিক সংরক্ষণ পদ্ধতি মেনে চলুন, ল্যাপটপের আয়ু বাড়াতে সচেস্ট হন।

Article Categories:
tips and tricks
https://techtunes.com.bd

হেই টেকলাভারস,আমি চেষ্টা করব আপনাদের নতুন কিছু দেওয়ার এবং অবশ্যই সেগুলা হবে আমার রিয়েল লাইফ এক্সপেরিয়েন্স থেকে, হেল্প ডেস্কে যেগুলা প্রশ্ন জমা পরবে সেগুলার উত্তর আপনাদের যথাসাধ্য সঠিকভাবে দেওয়ার চেষ্টা করবো আপনারা আমার টিউন গুলো সব ভালভাবে পড়বেন এবং বুঝার চেষ্টা করবেন, যদি কোথাও বুঝতে কোন অসুবিধা হয় কমেন্টে জানাবেন আমি চেষ্টা করবো আরোও ক্লিয়ার কন্সেপ্ট দিতে ইনশাআল্লাহ 🙂সবশেষে সবার জন্য শুভকামনা এবং সবাই আমার জন্য দুয়া করবেন যেন আমি ভাল কিছু অবশ্যই করতে পারি 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *