অবৈধ ও নকল মোবাইলের নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দিচ্ছে বিটিআরসি বিপাকে পড়তে পারেন অ্যানড্রয়েড ব্যবহারকারীরা 2020

অবৈধ ও নকল মোবাইলের নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দিচ্ছে বিটিআরসি বিপাকে পড়তে পারেন অ্যানড্রয়েড ব্যবহারকারীরা

পুরনো অ্যানড্রয়েড ফোন থেকে মানসম্মত অনেক ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যাবে না। নিরাপত্তাজনিত কারণে অসংখ্য অ্যানড্রয়েড ফোনকে আগামী বছরের ১১ জানুয়ারি থেকে প্রবেশাধিকার সুবিধা দেয়া হবে না।

প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট অ্যানড্রয়েড পুলিশ জানিয়েছে, অ্যানড্রয়েড ৭.১.১ ও এর আগের সংস্করণের ক্ষেত্রে বিষয়টি কার্যকর হবে।

জানা গেছে, বর্তমানে ৩৩.৮ শতাংশ ব্যবহারকারী স্মার্টফোনই অ্যানড্রয়েড ৭.১.১ বা তারও আগের সংস্করণের। বছরের শুরুতেই তারা কিছুটা বিপাকে পড়তে পারেন।

রুট সার্টিফিকেট অথোরিটি ‘লেটস এনক্রিপ্ট’ জানিয়েছে, বাজারের স্মার্টফোনগুলোর অধিকাংশই অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম চালিত। বছর-বছর অ্যানড্রয়েড সংস্করণে নতুনত্ব আসছে। আগের সংস্করণের অ্যানড্রয়েড থেকে পরবর্তী কয়েকটি সংস্করণে উন্নীত বা আপগ্রেড করা যায়। তাই পুরনো অ্যানড্রয়েড সংস্করণের রুট সার্টিফিকেট নিরাপত্তা ইস্যুতে গ্রহণযোগ্য বা নিরাপদ নয়।

নকল মোবাইলের নেটওয়ার্ক বন্ধ

স্মার্টফোনে শুরুতে অ্যানড্রয়েডের যে সংস্করণটি থাকে, পরবর্তীতে সেই হ্যান্ডসেটের কার্যক্ষমতার ভিত্তিতে নতুন কয়েকটি সংস্করণ পর্যন্ত আপগ্রেডের সুযোগ থাকে। যেসব গ্রাহকদের স্মার্টফোন পুরনো, নতুন অ্যানড্রয়েড সংস্করণে হালনাগাদ করতে পারেননি, তাদের সেটে নিরাপত্তা ত্রুটি থাকাটা অস্বাভাবিক না।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বিটিআরসি চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলেছেন, “অবৈধ মোবাইল হ্যান্ডসেট বন্ধ করতে ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেনটিটি রেজিস্টার (এনইআইআর) প্রযুক্তি সরবরাহ ও পরিচালনার দরপত্র প্রক্রিয়া প্রায় শেষের দিকে। আগামী বছর শুরু থেকে এ প্রযুক্তি বাস্তবায়ন শুরু হবে।”

তিনি আরো জানান, ফোন আমদানিকারক, অপারেটর এবং বাংলাদেশী মোবাইল নির্মাতাদের সাথে আলোচনার ভিত্তিতে গত তিন বছরে একটি ডাটাবেসে ১১ কোটির বেশি আইএমইআই নম্বর যুক্ত করা হয়।

২০১৮ এর আগে বিক্রিকৃত ও আইএমইআই লিস্টে না থাকা ফোনগুলোর সম্পর্কে বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেন, “২০১৯ সালের আগস্টের আগে ক্রয়কৃত যেসব সেট মোবাইল অপারেটরদের নেটওয়ার্কে যুক্ত আছে সেসব হ্যান্ডসেট নির্ধারিত সময়ের জন্য নিবন্ধিত করার একটা সুযোগ দেওয়া হবে।”

আপনার ফোনের বৈধতা যাচাই করবেন যেভাবে

বিটিআরসি আগে থেকেই জানিয়ে আসছে যে মোবাইল ফোন কেনার আগে আইএমইআই কোড ব্যবহার করে ফোনটির বৈধতা যাচাই করে নিতে। এছাড়াও বিক্রেতার কাছ থেকে হ্যান্ডসেট কেনার রশিদও নিতে হবে।

মোবাইল ফোনের বৈধতা যাচাইয়ের জন্য –

  • মোবাইল ফোনের ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুনঃ KYD <স্পেস> ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর
  • মেসেজটি পাঠান 16002 নম্বরে।
  • ফিরতি এসএমএস এ আপনার ফোনের বৈধতা সম্পর্কিত তথ্য জানানো হবে।

আপনার মোবাইল ফোনের ১৫ডিজিটের আইএমইআই নাম্বার জানতে ফোনের প্যাকেটে প্রিন্টকৃত স্টিকারটি চেক করুন। এছাড়াও ফোন থেকে *#06# ডায়াল করার মাধ্যমেও ফোনের আইএমইআই কোড জানতে পারবেন।