এবার পূর্ণিমায় ‘গোলাপি সুপারমুন’http://raboninco.com/9b7p

http://raboninco.com/9b7pএবার পূর্ণিমায় দেখা যাবে গোলাপি সুপারমুন। ছবি: টুইটাররাতের আকাশকে মোহময়ী করে তুলবে পিংক সুপারমুন। এই এপ্রিলেই সেই মহাজাগতিক দৃশ্য দেখা যাবে। এখন অপেক্ষা করতে হবে পূর্ণিমার জন্যই। সেদিন চোখ জুড়িয়ে যাবে চাঁদের রূপে।

করোনাভাইরাসের কারণে দেশে দেশে চলছে লকডাউন। আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা দিনকে দিন বাড়ছে। মানুষ এরই ঘরবন্দী হয়ে পড়েছেন। করোনায় জেরে বাইরে বের হওয়া যাবে না। কিন্তু বাড়ি ছাদে গিয়ে পিংক সুপারমুন দেখতে বাধা নেই। এবার পূর্ণচন্দ্র একেবারে গোলাপি সুপারমুন হয়ে দেখা দেবে। গোলাপি সুপারমুন ৭ এপ্রিল মার্কিন আকাশে আর পরদিন ৮ এপ্রিল আমাদের অঞ্চলে দেখা যাবে।

আমাদের এ অঞ্চলে গোলাপি সুপারমুন দেখা যাবে না সরাসরি। পিংক সুপারমুন অনলাইনে সরাসরি দেখতে পাওয়া যাবে। আমাদের দেশে স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে দেখা যাবে এ দৃশ্য। আকাশে তাকিয়ে চাঁদের দেখা যেহেতু পাওয়া যাবে না, তাই অনলাইনে সুপারমুন সরাসরি দেখা যাবে। নানা অনলাইন ও ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে, সেখানেই দেখতে পাওয়া যাবে এই সুপারমুন।

সুপারমুন তখনই হয়, যখন চাঁদ পৃথিবীর নিকটতম জায়গায় থাকে। পৃথিবী থেকে নিকটতম দূরত্বের কারণে চাঁদকে অনেক বড় এবং উজ্জ্বল দেখায়। এ মাসের পিংক সুপারমুন পৃথিবী থেকে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৯০৭ কিলোমিটার দূরে আছে। পৃথিবী এবং চাঁদের মধ্যবর্তী গড় দূরত্ব ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৪০০ কিলোমিটার। ৮ এপ্রিলের সুপারমুনটি এ বছরের সবচেয়ে বড় এবং উজ্জ্বলতম সুপারমুন হবে।

গোলাপি সুপারমুন দেখা যাবে ৮ এপ্রিল। টুইটার

গোলাপি সুপারমুন দেখা যাবে ৮ এপ্রিল। টুইটার‘গোলাপি চাঁদ’ নামটি গোলাপ ফুলের নামের ওপর ভিত্তি করে দেওয়া। আমেরিকার পূর্বাঞ্চলে বসন্তে ফুটে ওঠে ওই ফুল। এটি মোটেও চাঁদের রং নয়। পুরো গোলাকার এই চাঁদকে স্প্রাউটিং গ্রাস মুন, এগ মুন এবং ফিশ মুন হিসেবেও ডাকা হয়। এই নাম আমেরিকান অঞ্চল ও ঋতুর ওপর নির্ভর করে হয়।

এর আগে সুপারমুন দেখা গিয়েছিল গত ৯ থেকে ১১ মার্চের মধ্যে। মার্চের এই সুপারমুনকে ডাকা হয়েছিল সুপার ওয়ার্ম মুন নামে। সেই নামও বেশ পরিচিতি লাভ করেছিল এবং জনপ্রিয় হয়েছিল। আর পরের মাসের ৭ তারিখে দেখা যাবে সুপার ফ্লাওয়ার মুন। তথ্যসূত্র: ফোর্বস ও ইউএস টুডে।