সাবধান আপনার ফেসবুক আইডিটি ব্যান হয়ে জেতে পারে। আর ব্যান হয়ে গেলে কিভাবে ফিরিয়ে আনবেন তা জেনে নিন

কেমন আছেন সবাই ?আশা করি ভালই আছেন। বাংলাদেশে প্রায় ২ কোটি ৩৩ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারি আছে। যা বিশ্বের দ্বিতীয়তম। তবে বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারিদের মধ্যে প্রায় ৩ পারসেন্ট ফেক আইডি। তাই এইসব ফেক ফেসবুক ব্যবহারকারিদের ফেসবুক থেকে দূর করতে গত ১৪ই এপ্রিল ফেসবুক একটি অভিযান শুরু করে যার কারনে ফেসবুক থেকে অনেক ফেক আইডি দূর হয়। কিন্তু তার সাথে সাথে কিছু আসল আইডিও ফেসবুক থেকে ব্যান খেয়ে যায়।

 

অনেকের অনেক পুরনো আইডিও এই কারনে ফেসবুক থেকে ব্যান খেয়ে গেছে। তাই তাদের কথা চিন্তা করেই আমার আজকের এই টিউন। যাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এভাবে ব্লক খেয়েছে তাদের অনেকেরই ধারনা নেই যে আসলে তারা কি করবেন। অর্থাৎ কি করলে আইডিটি ফেরত পাবেন। প্রথমেই বলে রাখি ফেসবুক থেকে ব্যান সাধারনত দুই ভাবে হয়। একটি হলো কিছু সময় এর জন্য ব্যান আরেকটি হলো আজীবন এর জন্য ব্যান। যাদের কে টেম্পোরারি ব্যান করা হয়েছে তারা খুব সহজেই নিজেই আইডিটি ফেরত পেতে পারেন। এর জন্য প্রথম এই যেই কাজটি করতে হবে সেটি হোল আপনার ফেসবুক এর সাথে যেই ইমেইলটি দেয়া আছে সেই ইমেইলটি চেক করবেন দেখবেন সেখানে ফেসবুক থেকে কোন মেইল আসছে কিনা। যদি এসে থাকে সেটা ভাল মতো পরবেন।কি কারনে আপনাকে ব্যান করা হোল সেটি জানতে পারবেন।

কি কি কারনে ফেসবুক আইডি ব্যান হয়?

যদি আপনি আপান্র ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে স্পাম করেন। অর্থাৎ একি জিনিস বার বার টিউমেন্ট করা বা টিউন করা বা একি মেসেজ অনেক জনকে সেন্ড করা। এরকম করলে আপনার আইডি ব্যান হওার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আবার আপনি আপনার ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে যদি কোন উলটা পাল্টা জিনিস ছড়ান যেইগুলা ফেসবুক টার্মস ভাঙ্গে তাহলে তো কথাই নেই ফেসবুক আপনাকে লাথি মেরে বের করে দিবে।

যেনে তো গেলেন এবার কি করবেন ?

তারপরে যেই কাজটি করবেন সেটি হোল ফেসবুক এ গিয়ে লগ ইন করবেন। যদি আপনাকে নির্দিষ্ট টাইম এর জন্য ব্যান করা হয় তাহলে সেই লেখা অর্থাৎ কতদিন এর জন্য ব্যান খেয়েছেন সেটি দেখতে পাবেন। আর যদি নির্দিষ্ট টাইম এর জন্য ব্যান না করা হয় তাহলে আপনি একতা অপশন দেখতে পাবেন।

কি কি অপশন পাবেন ?

  • ১। অ্যাড মোবাইল নাম্বার
  • ২।ভেরিফাই মোবাইল নাম্বার
  • ৩। ফটো ভেরিফিকেসন
  • ৪। ডকুমেন্ট সাবমিট

সবচেয়ে আপনার ফেসবুক আইডিতে মোবাইল নাম্বার অ্যাড করা না থাকে তাহলে হয়ত আপনাকে মোবাইল নাম্বার অ্যাড করতে বলতে পারে। যদি এটা করতে বলে তাহলে তো আপনার কপাল ভাল। তবে আপনার কপাল যদি আরেকটু খারাপ হয় তাহলে আপনাকে ফটো ভেরিফিকেসন করতে বলবে। যদি আপনার ফ্রেন্ড সংখ্যা অনেক বেশি হয় তাহলে আপনাকে এটা করতে অনেক বেগ পেতে হবে। তবে যদি ফেসবুক ফ্রেন্ড এর সবাইকে চিনেন তাহলে তো কথাই নেই খুব সহজেই এই পরিক্ষায় উত্রে যাবেন।

আর আপনার কপাল যদি সবচেয়ে খারাপ হয় তাহলে ফেসবুক আপনাকে পআপনার ডকুমেন্ট আপলোড করতে বলবে। ডকুমেন্ট টা এমন হবে যেখানে আপনার জন্ম তারিখ, নাম ও ছবি আছে এবং অবশ্যই সেইগুলকে আপনার ফেসবুক আইডির সাথে মিলতে হবে। তাহলে কেবল আপনার ফেসবুক আইডি ফেরত পাবেন। অন্যথায় ফেসবুক আইডির কথা ভুলে যেতে হবে।

কিভাবে ফেসবুক আইডি সেফ রাখবেন আর আপনার আইডি যদি পার্মানেন্ট ভাবে ব্যান হয় তাহলে কি করবেন সেটি জানতে নিছের ভিডিওটি দেখে নিলে ভাল হবে কারন পারমানেন্ট ভাবে ব্যান হউয়া আইডি ফেরত পাওয়াটা একটু ঝামেলা তবে আশা করি ভিদেওডি দেখলে বুঝতে পারবেন কিভাবে কি করতে হবে।