১৫ নভেম্বর থেকে দেশে ‘এমপ্লোয়েবিলিটি ফেস্ট

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ও হার বৃদ্ধির ফলে চাকুরির বাজারে ও প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে কর্মসংস্থানের চাহিদা ও প্রতিযোগিতা।

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ও হার বৃদ্ধির ফলে চাকুরির বাজারে ও প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে কর্মসংস্থানের চাহিদা ও প্রতিযোগিতা। চাকরি প্রার্থীদের চাহিদা অনুযায়ী চাকরির বাজার অত বড় না হওয়াতে অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে চাকরি বা কর্মসংস্থান বেছে নিতে হয় চাকরি প্রার্থীদের। পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তির অধিকতর বিকাশের ফলে চাকুরির ক্ষেত্রেও তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার ও প্রয়োজনীয়তা বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। এই প্রতিযোগিতা মূলক অবস্থায় চাকুরি প্রার্থীদের বেশকিছু নিয়ম কানুন মেনে বা শিখে যদি চাকরির বাজারে না যায় সে ক্ষেত্রে চাকুরি প্রার্থীদের জন্য উপযুক্ত ও পছন্দসই চাকরি বা কর্মসংস্থান বেছে নেয়া অনেকের ক্ষেত্রে কঠিন হয়ে পড়ে।

এমন পরিস্থিতিকে মাথায় নিয়ে ইনস্পায়ারিং বাংলাদেশ ও সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধিন্যস্ত এলআইসটি প্রকল্প ও দুর্বারের অংশগ্রহণে তরুণদের জন্য শুরু হচ্ছে ‘এমপ্লোয়েবিলিটি ফেস্ট’ ২০২০। আয়োজনটি আগামী ১৫-১৭ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে।

এমপ্লোয়েবিলিটি ফেস্ট এর চারটি স্তম্ভ। এগুলো হলো-চাকরির দক্ষতা বিষয়ক সচেতনতা গঠন করা। নিয়োগকর্তা এবং পেশা সন্ধানীদের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন। ব্যক্তিগত ব্র্যান্ডিং টুলস উন্নতিকরণ। স্নাতকোত্তরদের মেনটরিং এবং কোচিং।

এই আয়োজন নিয়ে ইন্সপায়ারিং বাংলাদেশের ফাউন্ডার ইমরান ফাহাদ বলে, “এমপ্লোয়েবিলিটি ফেস্ট এর মাধ্যমে আমরা ১ লাখ যুবককে ভবিষ্যৎ চাকরির জন্য তৈরি করতে পারবো সেই প্রতিজ্ঞা নিয়ে আমাদের এই প্রয়াস।

অংশগ্রহণ করতে রেজিষ্ট্রেশন করুন করা যাবে এই লিংকে- https://rb.gy/ood9sa