fbpx
Jul 25, 2019
4753 Views

জেনে নিন প্রধান ৪টি ট্রেন্ড সম্পর্কে যা পরবর্তী বছরে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনগুলির ইউএক্স ডিজাইনকে ডমিনেট করবে

Written by

১।নেভিগেশন ২.০

টপ এবং বটম নেভিগেশন নিয়ে তর্ক-বিতর্ক দীর্ঘ দিনের,তবে আমরা ২০১৯ সালের শেষ দিগ টাতে-ই লক্ষ্য করব। আইওএস এবং অ্যান্ড্রয়েড এ ব্যাপকভাবে গ্রহন করা UX এর এই দুটি উপাদান এই ট্রানজিশন টি কে ডিফাইন করবে : বট্ম শীট এবং সোয়াইপ আপ গেসচার্স।

সাধারনত ব্যাবহারকারিরা মোবাইল-এ যে কোনো কাজ করার ক্ষেত্রে বুড়ো আঙ্গুল ব্যাবহারে সাচ্ছন্দ্য বোধ করে থাকে। লার্জ স্ক্রীন এর ডিভাইস এবং এক হাতে ব্যাবহারের প্রবনতার কারনে স্ক্রীন এর নিচের অংশ টি গুরুত্বপূর্ণ বাটন প্লেস করা ও হাতের নাগালে রাখার জন্য উপযুক্ত ।

বটম শীট:

ডিজাইনাররা সাধারনত ওভারফ্লো ড্রপ-ডাউন, হ্যামবার্গার সাইড-ড্রয়ার এবং পপ-আপ ডায়লগ এর মতো অন্যান্য উপাদানগুলির পরিবর্তে সাব-ফ্লোস এর জন্য বটম শীট পছন্দ করে থাকে ।

বটম শীট অত্যন্ত ফ্লেক্সিবল যেহেতু এটি ভার্টিকাল স্ক্রোল কে অ্যাডিশনাল কনটেন্ট এবং হরিযোনাল স্ক্রোল কে সিমিলার কনটেন্ট এর ক্ষেত্রে সহজতর করে। পুর্বে কোন কাজ জাম্পিং স্ক্রিন ছাড়া সম্ভব হয়নি। ব্যাকগ্রাউন্ড এ অ্যাংকর হিসেবে প্রাইমারি কনটেক্সট রেখেও বটম শীট এ সমানভাবে এন্ড-টু-এন্ড সাব-ফ্লোস ডিজাইন করা সম্ভব।

সোয়াইপ আপ গেসচার্স :

বর্তমানে সোয়াইপ আপ গেসচার্স কোন অ্যাপ ক্লোস করা,ফেরত যাওয়া এবং অ্যাপ ড্রয়ার ওপেন করার জন্য হোম বাটন/বটম ট্যাব বার রিপ্লেস করেছে।

দুটি ক্লিয়ার সেকশন হচ্ছে , কনটেন্ট (টপ এরিয়া) এবং নেভিগেশান (বটম এরিয়া) পপুলার অ্যাপ গুলিতে ফ্লোস কে মান-সম্পন্ন করবে এবং ব্যাবহারকারি দের অ্যাফরডেন্স বৃদ্ধির ক্ষেত্রে কগনিটিভ লোড কমীয়ে আনবে।

ম্যাটেরিয়াল এবং এইচ-আইজি উভয়-ই সাম্প্রতিক আপডেটে বটম নেভিগেশান এর জন্য নির্দেশনা অন্তর্ভুক্ত করেছে।

২।ভয়েস ইন্টারপ্লে এবং ভিজুয়াল ইন্টারফেসেসঃ

হিউম্যান কম্পিউটার ইন্টের‍্যাকশন-এর ক্ষেত্রে ভয়েস ইন্টারফেসেস আরেকটি বড় ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদিও ভিজুয়াল এবং ভয়েস ইন্টারফেসেস মুলত স্বতন্ত্র অবস্থায় রয়ে গেছে, তবে ২019-এ উভয়ই সমান স্কেলে গ্রহণযোগ্যতা দেখতে পাবে।

ভিজুয়াল ইউয়াইএস এ আমরা মাইক বাটন টি পেতে পারি কিংবা নাও পেতে পারি।

অ্যাপ্লিকেশন ব্যাবহারকালীন সময়ে কথা বলায় ইচ্ছুক হলে বলুন এবং অ্যাপ টি কনটেক্সট অনুযায়ী তা ব্যাখ্যা করবে এবং তা হবে ট্রান্সপারেন্ট।

ধরুন আপনি গাড়ি চালাচ্ছেন, তখন শুধু “Pick it up” বলে কল রিসিভ করা এবং “Read it for me” বলে একটি নটিফিকেশন রিড করা সম্ভব।কোন বই পড়াকালীন তা শুনতে চাইলে বলুন “Narrate this chapter” অথবা “Highlight last sentence” কিংবা “What does that mean” ছোট স্ক্রীন এ দীর্ঘ স্ক্রল সর্ট করতে না চাইলে বলুন “Show me the cheapest option and the fastest option” অথবা পুরো ফ্লো টিকে স্কিপ করতে বলুন “Find the cheapest option and book it using my Amex”. খুব সহজেই চ্যাটিং এর সময় “send uhhhhh” বলে টেক্সট সেন্ড করা ও “share live location for 30 mins” বলে লোকেশন শেয়ার করা সম্ভব।

আকর্ষণীয় পন্যগুলো এখানে সন্ধান করুন

৩।ভার্নাকুলার শুধুমাত্র কনটেন্ট এর জন্য নয়ঃ

পরবর্তী বিশ্ব যখন বিলিয়ন ব্যাবহারকারির হাতের মুঠোয়,লোকালাইসেশন তখন শুধুমাত্র কনটেন্ট নয়। copy, iconography, colors, UI metaphors, and UX flows and features ও তার অন্তরভুক্ত।

যেমন,ভার্নাকুলার ব্যাবহারকারিদের জন্য ফেসবুক-এ ইংরেজি UI রয়েছে তবে “What’s on your mind” ক্ষেত্রে লোকাল কপি juxtapose করে দেয়।

PayTm প্রতিটি ভাষার জন্য localised UI সরবরাহ করে এবং Sharechat নির্দিষ্ট ভাষার জন্য একটি ফিচার (adult content) কে হাইড করে।

Google Tez (now Google Pay) সাধারণত লোকাল ইউসার দের জন্য নির্মিত হয়েছিল এবং এক্সপ্লিসিট মেসেজিং,সিম্পল ফ্লোস এবং মিনিমাল ফিচার ব্যাবহারের মাধ্যমে Digital Trust building কে প্রাধান্য দিয়েছে।

তামিলনাড়ুর একটি স্তর 3 শহরের সাম্প্রতিক এক ব্যবহারকারীর গবেষণায়, আমাদের ব্যবহারকারীরা কিছু প্রশংসা করার জন্য “পছন্দ” করার পরিবর্তে স্থানীয় রূপক যেমন নমাস্ট, গারল্যান্ড ইত্যাদি পছন্দ করে। এক ব্যবহারকারীর দৃষ্টিকোণ থেকে এটি কল্পনা করুন। অনেকেই ভিন্ন, সে ইন্টারনেটে নতুন। তার ধারণা তার প্রসঙ্গ (স্থানীয়) এবং লার্নিং বক্ররেখা (ইংরেজি জন্য) সীমাবদ্ধ তার জন্য উচ্চ। তার জন্য এটি প্রস্তুত না হওয়া পর্যন্ত তিনি একটি পণ্য ব্যবহার করতে পারবেন না।

সাম্প্রতিক ব্যবহারকারীর এক স্তরের গবেষণায় তামিল নাড়ুর তিনটি শহরে কোন কিছু কে সমাদর করার ক্ষেত্রে “like” এর পরিবর্তে namaste, garland ইত্যাদি-এর মত লোকাল মেটাফোর গুলো প্রেফার করেছে তারা।একজন ব্যাবহারকারির দৃষ্টিভঙ্গি থেকে চিন্তা করে দেখুন। হতে পারে সে বাকিদের মত না,সে ইন্টারনেটে নতুন।হতে পারে তার কনটেক্সট(লোকাল) অনুসারে ধারনা সীমাবদ্ধ এবং লার্নিং কার্ভ (ইংরেজির জন্য) উচ্চতর। আর তাই একটি প্রোডাক্ট তার জন্য প্রস্তুত না হউয়া পর্যন্ত তিনি সেটা ব্যাবহার করতে পারবেন না।

অ্যাপগুলি কি-করে ক্রমবর্ধমানভাবে একাধিক ভাষাকে পন্যগুলিতে অ্যাকোমডেট করে তার অনেক ধরনের উদাহরন রয়েছে।

৪।ডিজাইন সিস্টেমসঃ

দুটি গুরুত্বপূর্ণ ডিজাইন সিস্টেমঃ

অ্যাপগুলোতে android এ Material এবং iOS এ Human Interface Guidelines

সাধারনভাবে ব্যবহৃত কম্পোনেন্টস এর জন্য এই সিস্টেমগুলো গাইডলাইন প্রদান করে থাকে,যেমন ঃ headers, cards, bottom sheets ইত্যাদি।

কম্পোনেন্টগুলোর কোড লাইব্রেরিও অত্যন্ত সহজলভ্য এবং ব্যাবহারকারি রাও তা ব্যাবহারে
default design systems বস্তুত কার্যক্ষমতা এবং অ্যাফরডেন্স নিশ্চিত করে। তবে এই ডিজাইন সিস্টেম গুলোর কাস্টমাইজেশন বর্ধনশীল।

Thanks for reading my article. Click here to learn more about mobile app development, Website Design & web application development service in Bangladesh,

Article Tags:
Article Categories:
internet · tips and tricks · মোবাইল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *