fbpx
Feb 22, 2020
2720 Views

যে ভাবে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়।

Written by

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে আমাদের মধ্যে এক ধরনের ভীতি কাজ করে। কারণ একাউন্ট হ্যাক হওয়া মানে আমাদের ব্যক্তিগত তথ্য অন্যের হাতে চলে গেছে। এসময় অস্থির না হয়ে ঠাণ্ডা মাথায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। এর জন্য কিছু প্রয়োজনীয় বিষয় জেনে নিতে হবে।

কেউ যদি আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে আপনাকে জিম্মি করে আপনার ক্ষতি করতে চায়, তাহলে আপনার অ্যাকাউন্টে আপনি নিজেও পাসওয়ার্ড দিয়েও ঢুকতে পারবেন না।

কিন্তু আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে ইমেইল বা পোস্ট যেতে থাকবে। তখন আপনি বুঝবেন আপনি আপনার অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছেন। মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করার উপায়।

আবার এমনও হতে পারে, আপনি আপনার অ্যাকাউন্টে ঢুকতে পারছেন কিন্তু আপনার নামে আপত্তিকর মেইল বা পোস্ট দেয়া হচ্ছে সেক্ষেত্রে আপনি ধরে নিতে পারেন আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে।

ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে কিনা এ বিষয়ে প্রথমে নিশ্চিত হতে হবে। এক্ষেত্রে নিচের লক্ষণগুলো দেখা দিলেই আমরা বুঝবো ফেসবুক আইডি হ্যাক হ্যাক হয়েছে-

  • আপনার ইমেইল অথবা পাসওয়ার্ড পরিবর্তন হয়ে যাওয়া।
  • আপনার নাম অথবা তথ্য পরিবর্তন হয়ে যাওয়া।
  • আপনার অজান্তে কাউকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো।
  • কাউকে ম্যাসেজ পাঠানো, যা আপনি পোষ্ট নি।
  • কোন কিছু পোস্ট বা শেয়ার করা, যা  আপনি নিজে করেন নি।

ফেসবুক আইডি হ্যাক কিভাবে হয়ে থাকে? বেশ কিছু পদ্ধতিতেই ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে থাকে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করা হলো।# কমন পাসওয়ার্ড এর মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক হতে পারে। যেমন, অনেকে পাসওয়ার্ড হিসেবে 123456 / abcd2017  দিয়ে রাখে। এক্ষেত্রে তার আইডিটি হ্যাকাররা হ্যাক করে নিতে পারে।দেখে নিন কিছু পাসওয়ার্ড লিস্ট, এগুলো আপনার পাসওয়ার্ড হিসেবে থাকলে ফেসবুক আইডি হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনার তালিকায় থাকতে পারে আপনার আইডি। লিংক – Click Here

# সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর মাধ্যমে হতে পারে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক। যেমন অনেকেই তার মোবাইল নাম্বারকে তার পাসওয়ার্ড হিসেবে দিয়ে রাখে। আবার অনেকেই নিজের পরিবারের মানুষ কিংবা ভালোবাসার মানুষটির নামকেই পাসওয়ার্ড হিসেবে দেখতে পছন্দ করে থাকে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই তার আইডিটি কোন হ্যাকার তথ্য সংগ্রহ করেই হ্যাক করে নিতে পারবে।

# ফিশিং পেজ 
– ফেসবুকের মতো দেখতে হুবহু একটি পেজ চলে আসলো। আপনি ফেসবুক মনে করেই কোন যাচাই বাছাই ছাড়াই দিয়ে দিলেন পাসওয়ার্ড। ব্যাস! হ্যাকারের কাছে চলে যাবে আপনার সকল তথ্য এবং প্রিয় এই ফেসবুক আইডি হ্যাক এর শিকার হতে হবে। বিটকয়েন কি ? বিটকয়েনের ইতিহাস এবং কেন এটি এত জনপ্রিয় হচ্ছে।

ছবি –
# Password recovery process  – এ আপনার আইডি এর আগের পাসওয়ার্ড এবং ইমেইলের পাসওয়ার্ড জানা থাকলে আপনার আইডি রিকভার করার মাধ্যমে হ্যাক করা যাবে। এর থেকে সুরক্ষিত থাকতে চাইলে আপনার আইডি এবং ইমেইলের পাসওয়ার্ড যেন কেউ না জানে সেদিকে লক্ষ রাখুন। ফেসবুক আইডি এবং ইমেইলের পাসওয়ার্ড ভিন্ন রাখবেন।

Trusted Contact হচ্ছে ফেসবুকের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। এই ফিচারটি আপনি চালু না রাখলে স্প্যামার আপনাকে টার্গেট করে আপনার নামে ফেক ডুকুমেন্ট তৈরি করে আপনার আইডি হ্যাক করতে পারবে।

# Session hijacking হচ্ছে আপনি অন্য কারো ডিভাইস থেকে যখন ফেসবুকে লগিন করবেন তখন আপনি লগ আউট করার পরও ব্রাউজার এর saved password  এ গিয়ে আপনার পাসওওার্ড পাওয়া যাবে। ফলে আপনার আইডি হ্যাক করা যাবে। এর থেকে সুরক্ষিত থাকতে অন্য কারো ডিভাইস দিয়ে ব্রাউজিং করার পর browser এর cache,history,saved password clear করে দিবেন।
# Man in the middle attack হচ্ছে আপনি যখন কোন wifi network/lan এ থাকবেন তখন একি wifi ব্যবহার করছে এমন কেউ আপনার পাসওয়ার্ড বের করে ফেলতে পারবে। বিভিন্ন software/mobile app দিয়ে এই attack wifi network এ চালিয়ে পাসওয়ার্ড বের করে ফেলা যায়। এর থেকে সুরক্ষিত থাকার জন্য vpn(virtual private network) ব্যবহার করে আপনার ip(internet protocol) address,mac address hide করে ফেলুন।
# Brute force attack হচ্ছে একটি পাসওয়ার্ড ডিকশনারি বানিয়ে কোন সফটওয়্যার ব্যবহার করে ডিকশনারি থেকে একটির পর একটি শব্দ যাচাই করে দেখা। যদি কোন word আপনার password এর সাথে মিলে যায় তাহলে সফটওয়্যার টি আপনাকে পাসওয়ার্ড জানিয়ে দিবে।এই পদ্ধতি অনেক সময় সাপেক্ষ এবং বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কাজ করে না। তবে kali linux operating system দিয়ে brute force attack করলে কাজ করার সম্ভাবনা আছে। এটি থেকে সুরক্ষিত থাকার জন্য আপনার পাসওয়ার্ড কোন meaningful word না দিয়ে letters,numbers,symbols এর সমন্বয় করে কঠিন পাসওয়ার্ড দিন। তাহলে এই পদ্ধতিতে পাসওয়ার্ড পাওয়া যাবে না।# USB Hacking হচ্ছে আপনার কম্পিউটারে pendrive/memory card ইত্যাদি প্রবেশ করিয়ে কম্পিউটারের তথ্য চুরি করা যায়। তথ্য চুরি করার মতো একটি batch file pendrive এ থাকলে এবং আপনি সেটায় ক্লিক করলে আপনার কম্পিউটারের তথ্য pendrive এ একটি word file এ save হয়ে যাবে। সুরক্ষিত থাকার জন্য pendrive কম্পিউটারে প্রবেশ করিয়ে scan করবেন এবং pendrive এ কোন batch file দেখলে ক্লিক করবেন না।সাধারন ব্যাবহারকারীর কিছু ভূলের কারনে যেভাবে ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে থাকে। চমকপ্রদ পোস্ট থেকে সাবধান
অনেক সময় ফেসবুক টাইমলাইনে ওজন কমানোর পরামর্শ বিষয়ক পোস্ট এসে ভরে যায়। চমত্কার ও চটকদার ওজন কমানোর পরামর্শ দেওয়ার কথা বলা হয় এসব পোস্টে। এ ধরনের পোস্টের মাধ্যমে স্ক্যাম ছড়ায় দুর্বৃত্তরা। অজানা, অচেনা উত্স থেকে আসা এ ধরনের পরামর্শগুলোতে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।  বিল গেটস এখনো পিসিতেই আস্থা রাখেন

ব্রেকিং নিউজ
ব্রেকিং নিউজ হিসেবে ফেসবুকে অনেক ক্ষেত্রে ভুয়া ও ম্যালওয়্যারভর্তি খবর প্রকাশ করে দুর্বৃত্তরা। ইন্টারনেট নিরাপত্তা বিশ্লেষকেদের পরামর্শ হচ্ছে, কোনো বিষয়ে তথ্য জানতে গুগলে সার্চ করে দেখা ভালো। ফেসবুকের পোস্ট করা লিংকে ক্লিক করলে তাতে ম্যালওয়্যার আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে।
কখনও তারকা গুজব পোস্টে ক্লিক নয়
ফেসবুকে তারকাদের নিয়ে বা সমসাময়িক বিভিন্ন ঘটনা সংশ্লিষ্ট গুজব নিয়ে চটকদার খবরের পোস্ট পাওয়া যায়। অনেক সময় এ ধরনের খবরকে ‘ব্রেকিং নিউজ’, ‘গোপন খবর’, ‘গোমর ফাঁস’, ‘তথ্য ফাঁস’, ‘আড়ালের খবর’ ইত্যাদি নামে পরিবেশন করা হয়।
ফেসবুকের গিফট কার্ড
আপনি ফেসবুকে লটারি জিতেছেন বা কোনো উপহার জিতেছেন বলে টাইমলাইনে পোস্ট দেখাতে পারে। বিনামূল্যে উপহারের নমুনা দেখিয়ে সে লিংকটিতে ব্যবহারকারীকে ক্লিক করতে আকৃষ্ট করে দুর্বৃত্তরা। বর্তমানে ফেসবুকের দ্রুত ছড়িয়ে পড়া স্ক্যামগুলোর একটি এই গিফট কার্ড স্ক্যাম। এ ধরনের লিংকে ক্লিক করলে ব্যক্তিগত তথ্য চাওয়া হয়। এসব তথ্য দেওয়া হলেও কোনো উপহার পাওয়া যায় না বরং কম্পিউটারে ম্যালওয়্যার ডাউনলোড হওয়ার ঝুঁকি থাকে।
ভুয়া নিউজ সাইটের লিংক
ফেসবুকে অজানা-অচেনা উত্স থেকে নানা গুজব, চটকদার খবর প্রকাশ করা হয়। খবরের যে উত্সগুলো আপনার পরিচিত নয় সে সাইটগুলোর খবরে ক্লিক করলে ম্যালওয়্যার আক্রমণের ঝুঁকি থাকে। আসল খবরের আদলে সাইবার দুর্বৃত্তরা ফেসবুকে ভুয়া নিউজের লিংক পোস্ট করে তাদের উদ্দেশ্য সফল করে।

এছাড়াও কিছু পদ্ধতি আছে হ্যাক করার জন্য। যেমনঃ stealers, sidejacking, botnets ইত্যাদি। তবে এগুলোই বেশি ব্যবহ্রত হয়।
অনেকেই ভাবেন হ্যাকারদের হাতে জাদুর কাঠি আছে এবং তারা যা চান তাই পারেন। তাই হ্যাকার দেখলে অনেকেই মনে করেন আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে দিবে এবং ভয় পান। ধারনাটি ভুল। হ্যাকিং একটি জ্ঞান, যা ভালোভাবে জানলে কেউ ই এর বাজে ব্যাবহার করতে চায় না।  তবে সাধারন মানের হ্যাকাররাই ফেসবুক আইডি সম্পর্কিত বিষয় গুলো নিয়ে পড়ে থাকে। প্রশিক্ষিত হ্যাকারদের কাছে নিজস্ব কোন পদ্ধতি থাকে। ইথিক্যাল / ভালো হ্যাকাররা ব্যক্তি স্বার্থের জন্য কারো আইডি হ্যাক করবেন না। বর্তমানে ইথিক্যাল হ্যাকিং একটি জনপ্রিয় পেশা। তাই, সকল হ্যাকাররাই এখন ইথিক্যাল ভাবেই কাজ করে থাকে। খুবই সাধারন পদ্ধতি গুলোতেই ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে থাকে এর ফলে। এবার নিজেই তৈরি করুন আপনার নিজেস্ব VPN!

যেভাবে ফেসবুক আইডির নিরাপত্তা বৃদ্ধি করবেন – # ফেসবুক আইডি হ্যাক এর হাত থেকে বাঁচার জন্য অবশ্যই আপনাকে যেভাবে ফেসবুক আইডি হ্যাক হচ্ছে তা ভালো ভাবে জানতে হবে। [ ইতিমধ্যেই আমরা সব গুলো পদ্ধতি নিয়েই আলোচনা করেছি।] তবে বাধ্যতামূলক ভাবে কিছু নিরাপত্তা নিশ্চিন্ত করতে হবে। তা হচ্ছে,
– কমন / সহজ পাসওয়ার্ড ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।- অহেতুক ফেসবুক এপ্লিকেশন ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।- যেই মেইল এবং ফোন নাম্বার দিয়ে ফেসবুক আইডি সংযুক্ত তা উক্ত ফেসবুক আইডিতেই প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকতে হবে।- লগিন এপ্রোভাল চালু করুন। [এতে আপনার ফেসবুকের পাসওয়ার্ড কেউ জেনে গেলেও আপনার অনুমতি ছাড়া চালু করতে পারবে না।] [ লগিন এপ্রোভাল চালু করতে – facebook > setting > Security and Login > Use two-factor authentication > setup > on ]- ট্রাস্টেড কন্ট্রাক্ট চালু করুন। এগুলো আপনার পরিচিতদেরকে নির্ধারন করুন। এতে আপনার আইডি স্প্যামাররা হ্যাক করতে পারবে না। অন্য কোন পদ্ধতিতে যদি হ্যাক এর শিকার হয় তাহলে যে কোন মূহুর্তে আপনি Trusted Contact এর সাহায্যের মাধ্যমে রিকভার করে নিতে পারবেন।

ফেসবুক আইডি হ্যাক হলে রিকভার করার পদ্ধতি – 
হ্যাক হওয়ার পর আইডিটি উদ্ধার করতে কয়েক ধাপে কাজ করতে হয়। হ্যাক হওয়া আইডি ফিরে পাওয়ার উপায় তুলে ধরতে এ টিউটোরিয়াল।প্রথমে এড্রেস বার থেকে www.facebook.com/hacked এ লিংকে প্রবেশ করতে হবে।
এরপর My Account Is Compromised এ ক্লিক করতে হবে।
তারপর ফোন নম্বর, ই-মেইল কিংবা ইউজার নাম দিয়ে একাউন্টটি শনাক্ত করতে হবে।
এরপর নিরাপত্তামূলক কিছু প্রশ্ন জানতে চাওয়া হবে। কয়েক ধাপে সেগুলোর সঠিক তথ্য দিলে হ্যাক হওয়া আইডি ফিরে পাওয়া যাবে। তবে শর্ত একটিই একাউন্টের সব তথ্য সঠিকভাবে দিতে হবে। তবে উপরের দেওয়া নিরাপত্তা তথ্য অনুযায়ী আপনি ট্রাস্টেড কন্ট্রাক্ট এ আপনার পরিচিতদের দিয়ে রাখলে আপনি খুব সহজেই আইডি হ্যাক হলেও রিকভার করে নিতে পারবেন।
সাইবার জগতে সচেতন থাকুন, নিরাপদে বিচরণ করুন। এই প্রত্যাশাই রইলো।

আর্টিকেল ক্রেডিট এবং রিসার্চঃ গুগল এবং ebangla.tech

Submit your review
1
2
3
4
5
Submit
     
Cancel

Create your own review
Techtunes
Average rating:  
 0 reviews
Article Tags:
Article Categories:
হ্যাকিং

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *