যারা গল্প শুনতে ভালোবাসেন এদিকে আসেন

বই পড়ার অভ্যাস সেই ছোটবেলা থেকেই। সেবা প্রকাশনীর তিন গোয়েন্দা দিয়ে শুরু। মারাত্মক আসক্তি ছিলো তারপর মাসুদ রানা, ওয়েস্ট্রোন সিরিজ, কুয়াশা ইত্যাদি। এগলা নিয়েই পরে থাকতাম। এরপর শুরু ফেলুদা, বোমকেশ। খুব ভালো লাগতো। বড় হওয়ার সাথে সাথে শুরু হইলো পাঠ্য বই এর ঠেলা… আস্তে আস্তে কিশোর, মুসা, রবিন, এম আর নাইন, কুয়াশা, প্রদোস মিত্তির, বোমকেশ এরা জীবন থেকে দূরে যাওয়া শুরু করলো 🙁

এস এস সি পাশ করে শহরের কলেজে ভর্তি হলাম মেসে উঠলাম, তখন সঙ্গী হলো একটা ২ ব্যান্ড এর রেডিও। সেখানে এ এম ব্যান্ড বাংলাদেশ বেতার এর অনুষ্ঠান শুনতাম, আর বসে থাকতাম কবে রেডিও নাটিকা গুলো হবে। মাঝ রাতে হতো একদিন, আবার একদিন ছিলো রাত ১০টার পর, আর একদিন দুপুরে। বসে থাকতাম নাটিকা শোনার জন্য। খুব ভালো লাগতো শুনতে।

এর পর সময় আরো পাণ্টালো.. যুগ আধুনিক হলো.. এফ এম রেডিওর সময় চলে এলো.. রেডিও শোনার ফিলিংসটা চলে এলো অন্য এক লেভেল এ। তবে রেডিও নাটকগুলো কে মিস করতাম এফ এম রেডিও তে। হঠাৎ এক বন্ধু কিছু অডিও ফাইল পাঠালো বলল চালা.. শুনে দেখ। একটা শুনেই তো মাথা খারাপ হয়ে গেল। পাশের দেশ ভারতের রেডিও মিরচির একটা অনুষ্ঠানের রের্কডেড অংশ। অনুষ্ঠানের নাম সানডে সাসপেন্স.. এত অসাধারন ভাবে সেখানে রেডিও নাটক গুলো প্রচার করছে শুনলে মনে হতো চোখের সামনেই সব দেখছি! আরো মজার ব্যাপার সব গল্প গুলো রহস্য, গোয়েন্দা থ্রিলিং নির্ভর! বোমকেশ, ফেলুদা, শার্লক হোমস, দারোগা প্রিয়নাথ কি নেই। মিরাক্কেল দেখে মির এর ভক্ত অনেক আগে থেকেই, সেই মির এর অসাধারন গলায় একেকটা গল্প। শুরু হলো এই অনুষ্ঠানের অডিও কালেকশন করা। তবে ঠিকমত পেতাম না। বহু কাবজাব করে খুজে পাওয়া যেত একেকটা ফাইল। এরপর আমাদের দেশের রেডিও টুডেও শুরু করলো একটা অনুষ্ঠান থার্সডে নাইট সাগা, এরাও দারুনভাবে শুরু করলো ৩৫+ এপিসোড করার পর হুট করে বন্ধ হয়ে গেল, শুনতাম ভালো লাগতো।

কিন্তু রেডিওতে শোনার জন্য টাইমিং মেলানো কঠিন হয়ে যেত, মাঝে মাঝেই মিস করে ফেলতাম। পরে খুজে খুজে শোনা লাগতো। এরপর পেলাম আরেক ওয়েবসাইটের সন্ধান যেখানে আমি যা খুজে সব থরে থরে গুছিয়ে সাজায়ে রাখা!!!! শুধুমাত্র ক্লিক দেই আর গল্পো শুরু হয়ে যায়, হেডফোন কানে লাগে শুরু করে দেই শোনা। এখন পর্যন্ত প্রচারিত রেডিও অনুষ্ঠানগুলোর সব পর্বগুলো এখানে সাজানো আছে। যখন যেটা মন চায় শুনতে পারি। আরো মজার ব্যাপার হলো এদের মোবাইল এপসটা। দারুন ভাবে গোছানো, এখন বেশিরভাগ সময়ই এই এপস দিয়ে শুনি যদিও কিছু সিমাবদ্ধতা চোখে পরছে এপস এর কিন্তু যা আছে এতেই আমি সন্তুস্ট কারন এখন সময়টা খুব সুন্দর কাটে অডিও স্টোরি গুলো শুনতে শুনতে। অনেক দিন ব্লগ লেখা হয় না.. আবার কিছু লিখি … তাই ভাবলাম আমার মত যারা গল্প পড়তে ও ইদানিং শুনতে ভালোবাসে তাদের জন্যই লেখা দিয়েই আবার শুরুটা করি।

ওয়েবসাইটঃ https://onlinebanglaradio.com/

মোবাইল এপসঃ https://play.google.com/store/apps/details?id=com.antenna.app

সবাইল ভালো থাকবেন। যদি গল্প শুনে থাকেন তাহলে জানাতে ভূলবেন না কেমন লাগলো।