fbpx
May 16, 2020
1289 Views

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? affiliate marketing কিভাবে শুরু করবেন?

Written by
একটি অদম্য সময় জেগে। বাসে ঠেলাঠেলি করে অফিসে যান, রাস্তাগুলি অন্য আধো ঘুমন্ত যাত্রীদের সাথে জ্যাম হয়ে থাকে। সারা দিন গাদার খাটনি খেটে আবার জ্যামের সাথে যুদ্ধ করে বাসাই ফেরেন।
কি ভয়ঙ্কর লাগছে?
 
কীভাবে, কয়েক টাকা উপার্জনের জন্য ইঁদুরের এক ঘেয়েমি এবং বোকা লোকদের সাথে আচরণ করার পরিবর্তে আপনি যে কোনও সময়, যে কোনও জায়গা থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন – এমনকি আপনি যখন ঘুমাচ্ছেন?
Affiliate marketing এর মাধ্যমে।
Affiliate marketing হলো একটি উল্লেখযোগ্য অনলাইন আয় উপার্জনের একটি জনপ্রিয় কৌশল। বিভিন্ন ব্র্যান্ড এবং অনুমোদিত বিপণনকারীদের জন্য অত্যন্ত উপকারী, কম traditional বিপণন কৌশলগুলির মাধ্যমে marketing আচ্ছে আচ্ছে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।
 

তাহলে, এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? affiliate marketing কিভাবে শুরু করবেন, এর দ্বারা কত টাকা কামাতে পারবেন এবং কিভাবে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং দ্বারা টাকা আয় করা যায়, এই সব প্রশ্নর উত্তর আমরা এক এক কোরে নিচে জানবো।

শুরু করার আগেই আমি আপনাদের একটা কথা জানিয়ে দিতে চাই। এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় করার জন্য বা এর লাভ নেয়ার জন্য আপনাদের একটি “ব্লগ“, “ইউটিউবের চ্যানেল” বা “ওয়েবসাইটের” প্রয়োজন হবে।

হে, আপনি চাইলে ফেসবুক পেজ বা যেকোনো সোশ্যাল মিডিয়া পেজে affiliate marketing করতে পারবেন। কিন্তু, সেটা বেশি কার্যকর বা লাভ দায়ক হবেনা।আমি, কেন এইটা বললাম সেটা আপনারা এই আর্টিকেলটা পুরো পড়লেই বুঝে যাবেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী?

Affiliate marketing এমন একটি উপায় বা মাধ্যম যার দ্বারা আমরা যেকোনো অনলাইন কোম্পানির ডিজিটাল প্রোডাক্ট (Digital product), অনলাইন স্টোরের ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট (physical product) বা অনলাইন কিনতে পাওয়া যেকোনো জিনিস, নিজের ওয়েবসাইট, ব্লগ, সোশ্যাল মিডিয়া পেজ বা ইউটিউবের চ্যানেলে “এফিলিয়েট লিংক এর মাধ্যমে” প্রোমোট (promote) করতে পারি।

এবং,যখনি সেই প্রোমোট করা জিনিসটি আপনার দেয়া লিংকের মাধ্যমে গিয়ে লোকেরা কিনবেন বা প্রোমোট করা লিংকের মাধ্যমে PRODUCT এর official ওয়েবসাইটে গিয়ে অন্য কোনো product কিনবেন, তখন আপনাকে সেই প্রোডাক্টটি বিক্রি করানোর জন্য কিছু commission টাকা দেয়া হয়।

এই আয় করা কমিশনের রাশি অন্য অন্য প্রোডাক্ট এর ওপর আলাদা আলাদা হোতে পারে। কমিশনের রাশি বা আপনাকে কত টাকা কমিশন দেয়া হবে, সেটা “আপনি জে অনলাইন ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্ট প্রোমোট বা শেয়ার করছে একজন এফিলিয়েট হিসেবে সেই অনলাইন ওয়েবসাইট কোম্পানি নির্ধারিত বা ঠিক করবে। এমনিতে, সবটাই আপনাকে আগের থেকেই ডিটেইলসে বলে দেয়া হয়।

তাহলে, সোজাভাবে বললে – “affiliate marketing এমন একটি মার্কেটিং এর মাধ্যম যেখানে আপনি যেকোনো অনলাইন প্রোডাক্ট বা জিনিস অন্যদের কেনার জন্য আগ্রহ করেন। এবং, আপনার প্রমোট করা প্রোডাক্টটি যখন কেও কিনে, তখন আপনাকে কিছু টাকা কমিশন হিসেবে দেয়া হয়।

আপনি যেকোনো digital product যেমন “ডোমেইন”, “হোস্টিং”, “ওয়ার্ডপ্রেস থিম”, “অনলাইন সফটওয়্যার” আদির মার্কেটিং নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইটে কোরে তাদের বিক্রি করতে পারেন।

এর বাইরে, সব থেকে প্রচলিত উপায় এফিলিয়েট মার্কেটিং এর এটাই যে, আপনি ইন্টারনেটে থাকা যেকোনো একটি অনলাইন শপিং ওয়েবসাইটে (online shopping website) একটি affiliate marketer হিসেবে রেজিস্টার কোরেতে হবে।

তারপর, আপনি সেই শপিং ওয়েবসাইটে থাকা যেকোনো জিনিশ যেমন, “Mobile”, “TV”, “জামা কাপড়”, বই (books), সফটওয়্যার বা যেকোনো জিনিস affiliate link এর দ্বারা প্রোমোট বা শেয়ার কোরে টাকা আয় করতে পারবেন।

এফিলিয়াতে মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন ? (How to start affiliate marketing ?)

নিচে আমি ৬ টি সোজা পয়েন্ট বা স্টেপস বলবো, যেগুলি পুরো কোরে আপনারা এফিলিয়াতে মার্কেটিং এর মাধ্যমে কাজ শুরু করতে পারবেন।

  1. সবচে আগেই, আপনার একটি ব্লগ, ইউটিউবের চ্যানেল, ফেসবুক পেজ বা অন্য সোশ্যাল মিডিয়া পেজ থাকতে হবে।এবং, সেই পেজ, ব্লগ বা ইউটিউবের চ্যানেলে অনেক ট্রাফিক, ভিসিটর বা লাইক থাকতে হবে। কারণ, যেকোনো প্রোডাক্টের (product) এর মার্কেটিং করার জন্য সবচে জরুরি অডিয়েন্স (audience)যাদের কাছে আপনি প্রোডাক্ট শেয়ার বা মার্কেটিং করবেন। এবং, যেকোনো জিনিস অনলাইনে মার্কেটিং করার এই ৪ টি মাধ্যম সেরা।
  2. এখন আপনার একটি ব্লগ, ইউটিউবের চ্যানেল বা ফেসবুক পেজ, এগুলির মধ্যে যদি একটিও আছে, তাহোলে এখন আপনি একটি ভালো “Affiliate program” জয়েন করতে হবে। যেকোনো অনলাইন affiliate program জয়েন করার পর আপনি তাদের সামগ্রী বা প্রোডাক্ট প্রোমোট বা শেয়ার করতে পারবেন।
  3. এখন affiliate network বা affiliate program জয়েন করার পর, আপনি কেমন সামগ্রী বা প্রোডাক্ট লোকেদের সাথে শেয়ার করবেন সেটা আপনার নির্ধারিত বা বাছাই করতে হবে।
  4. আপনার বেঁচে নেয়া প্রোডাক্ট বা সামগ্রীর বিনিময়ে আপনাকে একটি affiliate link দেয়া হবে। এই, এফিলিয়েট লিংকের মাধ্যমে লোকেরা আপনার শেয়ার বা প্রোমোট করা প্রোডাক্টের পেজে আসতে পারবে। এবং, এখানথেকেই তারা সেই প্রোডাক্টটি ডাইরেক্ট কিনে নিতে পারবেন।
  5. এরপর আপনাকে দেয়া প্রোডাক্টের এফিলিয়েট লিংক আপনি নিজের ব্লগ, ইউটিউবের চ্যানেল, ফেসবুক পেজ বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে লোকেদের সাথে শেয়ার কোরে মার্কেটিং করতে পারবেন।
  6. এখন, আপনার শেয়ার করা প্রোডাক্টের এফিলিয়েট লিংকের মাধ্যমে যদি কেও সেই সামগ্রী মা প্রোডাক্ট টি কিনেন, তাহলে আপনি affiliate network টির তরফ থেকে টাকা পাবেন commission হিসেবে।

তাহলে, এই ৬ টি সোজা স্টেপস পোরে হয়তো আপনারা বুঝেই গেছেন যে, এফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন।

কিছু লাভজনক এবং বিখ্যাত এফিলিয়েট প্রোগ্রাম (affiliate program)

এমনিতে আজকাল সব ছোট্ট বড়ো অনলাইন স্টোর বা কোম্পানি affiliate program ব্যবহার করেন। কিন্তু, তাদের মধ্যে কয়েকটি এমন এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক রয়েছে যেগুলি বেশি কমিশন ইনকাম দেয়ার জন্য বিখ্যাত।

  1. Flipkart affiliate program – এইটা ইন্ডিয়া অনেক নাম করা এবং জনপ্রিয় একটি online shopping website . এখানে ফ্রীতেই এফিলাট হিসেবে রেজিস্টার কোরে আপনি বিভিন্ন রকমের দামি কমদামি জিনিস ভালো commission এ বিক্রি করতে পারবেন।
  2. Amazon affiliate program – ভারতের e-commerce ব্যবসাতে আমাজন (amazon) সবচেয়ে আগে এবং এই অনলাইন শপিং স্টোরেও আপনি affiliate হিসেবে রেজিস্টার হোয়ে বিভিন্ন রকমের product এফিলিয়েট লিংকের মাধ্যমে ভালো কমিশনে বিক্রি করতে পারবেন।
  3. Go daddy  (domain & hosting) – যদি আপনার ব্লগ বা ইউটিউবের চ্যানেল blogging এবং hosting এর ওপরে, তাহলে Go Daddy তে একজন এফিলিয়েট হিসেবে নিজেকে রেজিস্টার করুন এবং অনেক হাই কমিশনে ডোমেইন এবং হোস্টিং বিক্রি করুন। Go daddy ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার অনেক বিখ্যাত অনলাইন কোম্পানি।
  4. Hostgator affiliate network – hostgator ডোমেইন এবং হোস্টিং এর মার্কেটে অনেক নাম করা কোম্পানি। এবং, আপনি যদি ডোমেইন বা হোস্টিং এর এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান, তাহলে hostgator আপনাকে ভালো কমিশন দিতে পারবে। এখানে আপনি কেবল একটি বিক্রিতেই প্রায় ৩০০০ টাকা অব্দি আয় করতে পারবেন।
  5. Ebay affiliate program – আপনারা হয়তো ebay অনলাইন ওয়েবসাইটের কথা অবশই জানেন। ebay একটি অনলাইন শপিং সাইট যে বিশ্বের সব জায়গায় নিজের প্রোডাক্ট ডেলিভার করেন। এবং, আপনি যেই দেশের কেন নাহোক, ebay এফিলিয়েট প্রোগ্রামের মাধ্যমে আপনি তার যেকোনো অনলাইন product মার্কেটিং কোরে ভালো commission আয় করতে পারবেন।

এর বাইরেও অনেক লোকাল ওয়েবসাইট রয়েছেন যারা আপনাকে তাদের প্রোডাক্ট অনলাইন বিক্রি করানোর জন্য ভালো কমিশন দেন। আপনি সোজা Google এ গিয়ে নিজের দেশের লোকাল affiliate program এর বিষয়ে সার্চ কোরে তাদের join করতে পারেন।

কিরকম প্রোডাক্ট প্রমোশন বা মার্কেটিং করবেন ?

অবশই মনে রাখবেন, সব সময় এমন একটি প্রোডাক্ট মা সামগ্রী বাছাই (select) করবেন যার চাহিদা লোকেদের মাঝে আছে। উদাহরণ স্বরূপে, ডোমেইন এবং হোস্টিং এর চাহিদা অনেক। কারণ আজ লোকেরা নিজেদের ব্যবসা অনলাইন নিয়ে আসতে চান, এবং তার জন্য তারা ডোমেইন বা হোস্টিং অবশই কিনতে চাবেন। অনেক রকমের অনলাইন প্রোডাক্টের চাহিদাও লোকেদের মাঝে এমনিতেই রয়েছে। এর বাইয়ারে, যেগুলি product সহজে বিক্রি হতে পারে এবং যেগুলিতে কমিশন ইনকাম বেশি সেগুলি মার্কেটিং করার চেষ্টা করুন।

কিছু লাভজনক  এবং সহজে বিক্রি হওয়া এফিলিয়েট প্রোডাক্ট হলো –

  • মোবাইল বা স্মার্টফোন
  • ডোমেইন এবং হোস্টিং
  • বই (books).
  • ওয়ার্ডপ্রেস থিম (WordPress theme).
  • ল্যাপটপ (laptop)
  • কাপড় জামা (cloths)
  • আরো অনেক।

আয় করা টাকা কিভাবে কিভাবে তুলবেন ?

এফিলিয়েট প্রোগ্রামের মাধ্যমে আয় করা কমিশন ইনকাম আপনি অনেক সহজে নিজের ব্যাঙ্ক একাউন্টে (bank account) তুলে নিতে পারবেন। ব্যাঙ্ক একাউন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে সঠিক অপসন দেয়া হবে।

Article Categories:
earn money online

Comments to এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? affiliate marketing কিভাবে শুরু করবেন?