fbpx
Jun 19, 2020
589 Views

Wabsite তৈরির পূর্বে অবশ্যই অবশ্যই অবশ্যই যা জানা উচিৎ

Written by

wabsite তৈরি করার পূর্বে আপনার যে বিষয় গুলো অবশ্যই অবশ্যই জানতে হবে।যেমনঃ- ডোমেইন নাম, হোস্টিং স্পেস,বিষয়,SEO ইত্যাদি।

আস সালামু  আলাইকুম কেমন  আছেন সবাই? আশা  করি  ভালো আছেন। আমি মোঃ- লোকমান হোসেন। একজন সাধারণ ও মুক্ত চেতনা এবং পর উপকারী মানুষ। আপনারা যারা ওয়েবসাইটের মালিক বা ওয়েবসাইট তৈরি করবেন এই লেখাটি তাদের জন্যই  প্রকাশিত। চলুন আল্লাহর নামে শুরু করি।

ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বে অবশ্যই করনীয় কাজ গুলো হলোঃ-

.আপনি কোন ধরনের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান?

.আপনার ওয়েবসাইট এর উদ্দেশ্য কি?

.কোন বিষয়ের উপর নির্ভর করে ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাচ্ছেন?

.আপনার ওয়েবসাইট এর ডোমেইন নাম কেমন হবে?

.আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য হোস্টিং কত স্পেস প্রয়োজন?

.ডোমেইন এবং হোস্টিং পোভাইডর কোম্পানি গুলোর সাথে আপনার যোগাযোগ কেমন হবে?

.আপনার ওয়েবসাইট এর ব্যানডউইথ,সাভার আপ টাইম,লোডিং স্পিড ইত্যাদি কেমন হবে?

.আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট কে করবে?

.ওয়েবসাইট তৈরির জন্য আপনার বাজেট কত টাকা?

.আপনি ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে পারবেন কিনা?

.আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য যোগ্যতা এবং অভিজ্ঞতা আছে কি?

এখন আমি বিস্তারিত বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো

১.কি ধরনের ওয়েবসাইট

ওয়েবসাইট মূলত দুই ধরনের হয়।

  • (১) statics wabsite
  • (২) Dynamic wabsite

(১) statics wabsite

এই ওয়েবসাইটটি স্তির হয়ে থাকে। এটা তেমন একটা পরিবর্তনের প্রয়োজন হয় না। এই সকল ওয়েবসাইট গুলো যে কোন একটা বিষয়ের উপর নির্ভর করে তৈরি করা হয় থাকে।এখন যেমন দেখবেন ঠিক ৬ মাস বা ১ বসর পরেও তাই দেখবেন।একে Evergreen wabsite ও বলা হয়ে থাকে।

(২) Dynamic wabsite

এই ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ আলাদা এবং সব সময় পরিবর্তনশীল। নতুন নতুন আপডেট হতে থাকে এবং আপনি যেগুলো তথ্য দেখতে পাবেন আমি সেগুলোই দেখতে পাব না। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় যে, ফেসবুকে আপনি যে তথ্য গুলো দেখেন আমি কি সেই গুলোই দেখতে পায়? এটিই হচ্ছে Dynamic wabsite।

আপনার ওয়েবসাইট এর উদ্দেশ্য কি?

আমরা অনেকে শখের বশে, টাকা ইনকাম করতে, ভালো কিছু উপহার দিতে, সুনাম অর্জন করতে ইত্যাদি উদ্দেশ্য গুলো নিয়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকি। এখন আপনি কি উদ্দেশ্য নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করবেন সেটা ঠিক করুন।তবে সব সময়ই মন রাখবেন টাকা ইনকাম উদ্দেশ্য নিয়ে ভুলেই ওয়েবসাইট তৈরি করবেন না।কারণ আপনি টাকা ইনকামে অপারগ হয়ে যাবেন। উদাহরণ হচ্ছে এখন সবাই কিন্তু ভালো কিছু চায়। আর আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে ভালো কিছু উপহার দিতে পাড়লেই তারা আপনার ওয়েবসাইট এ বার বার পরিদর্শন করবে।আর তখন আপনি যেভাবেই মন চায় ঠিক সেইভাবেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনার ওয়েবসাইট এর বিষয় টি কি?

বিভিন্ন লোক বিভিন্ন বিষয়ের উপর নির্ভর করে ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকে। যেমনঃ- কেউ Health, কেউ Games, কেউ Technology রিলেটেড ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকে।তাই আপনার ওয়েবসাইট এর বিষয় টি কি সেটা ঠিক করুন।

আপনার ওয়েবসাইট এর ডোমেইন নাম কেমন হবে?

আপনার ওয়েবসাইট এর ডোমেইন নাম কেমন হবে এবং সেইটা আপনার নাম বা পতিষঠানের
নুযায়ী হবে কিনা তা ঠিক করতে হবে।যেমন আপনি  Technology রিলেটেড ওয়েবসাইট তৈরি করবেন এখন আপনার ওয়েবসাইট এর ডোমেইন এর নাম হবে Technology.com এখন আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইট এর ডোমেইন নাম করন করেন Vigo.com তাহলে কিন্তু হবে না। আপনাকে অবশ্যই বিষয়ের উপর মিল রেখে তারপর ডোমেইন নাম নিবাচন করতে হবে।আশা করি আপনি বিষয় টি বুঝতে পাড়ছেন।

আপনার ওয়েবসাইট এর হোস্টিং স্পেস

আপনার ওয়েবসাইট এর হোস্টিং স্পেস কত GB হবে তা নিধারিত করা উচিৎ। যেমন আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য যোগ্য হোস্টিং প্রয়োজন 3 GB এখন আপনি হোস্টিং কিনলেন 1 GB তাহলে আপনি সমস্যার ভুক্তভোগী হবেন। তাই আগেই সাবধান হোন।

ডোমেইন এবং হোস্টিং পোভাইডর কোম্পানি গুলোর সাথে আপনার যোগাযোগ কেমন হবে?

আপনি যে কোম্পানি থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনেছেন তাদের সাথে আপনার যোগাযোগ কেমন হবে। তারা কি ধরনের ডোমেইন এবং হোস্টিং পোভাইডর এটা জানা উচিৎ। কারণ দেখা যায় যে কিছু ডোমেইন এবং হোস্টিং পোভাইডর কোম্পানি বাংলাদেশের মধ্যে কিছু দিন থাকে পরে আবার নাই অথবা সব ঠিক আছে।আপনার এখন সমস্যা হয়েছে বা তাদের দরকার কিন্তু আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পাড়িতেছেন না।

আপনার ওয়েবসাইট এর ব্যানডউইথ,সাভার আপ টাইম,লোডিং স্পিড ইত্যাদি কেমন হবে?

ওয়েবসাইট এর ক্ষেএে এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।বেশির ভাগই ওয়েবসাইট এর মালিক এই সমস্যায় ভুক্তভোগী হয়েছেন। Slow লোডিং স্পীড এর জন্য আপনার ওয়েবসাইট  র ্যাংক পাবে না। আবার সাভার আপ টাইম কম তা হলেও সমস্যায় পড়বেন। তা ছাড়াও
ব্যানডউইথ বিষয় টির উপর গুরুত্ব দেওয়া উচিৎ।

আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট কেমন হবে?

আপনার ওয়েবসাইট অবশ্যই একজন অভিজ্ঞতা সম্পুর্ন ওয়েবসাইট ডিজাইনার এবং ডেভলপার দ্বারা তৈরি করা উচিৎ। কারণ ওয়েবসাইটটি মোবাইল,লেপটপ,কম্পিউটার ডিভাইসে অবশ্যই ভালো দেখাতে হবে। নইলে আপনি ভালো ভিজিটর পাবেন না।

ওয়েবসাইট তৈরির জন্য আপনার বাজেট কত?

সাধারনত ডোমেইন নাম এবং হোস্টিং কিনতে ২০০০-৩০০০ টাকা দরকার হয়ে থাকে।কিন্তু আপনি যখন ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট করবেন তখন ৫০০০-১০০০০ টাকা লাগতে পারে অথবা এর চেয়েও বেশি। তাই আপনার ওয়েবসাইট তৈরির জন্য আপনার বাজেট কত টাকা লাগবে সেটা চিন্তা করে সেইনুযায়ী ব্যাবসতা নেওয়া উচিৎ। আবার ভবিষ্যতে রিনিউ এবং ব্যানডউইথ এর জন্য টাকা লাগবে।এই বিষয়গুলো খেয়াল রেখে এগিয়ে যেতে হবে।

আপনি ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে পারবেন

আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করলেন ঠিকই কিন্তু আপনি জানেন না কিভাবে ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে হয় অথবা আপনার হাত সময় নেই। তাহলে আপনি সমস্যায় পড়ে যাবেন।কেন ওয়েবসাইট তৈরি করলাম,কি যে সমস্যা,ধ্যাত এখন আমি কি করবো?
তাই এই বিষয় টি একবার হলেও ভেবে দেখুন যাতে পরবর্তীতে অাফসোস করতে না হয়।

আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য যোগ্যতা এবং অভিজ্ঞতা আছে কি?

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে যোগ্যতা এবং অভিজ্ঞতা সম্পুর্ন হতে হবে। কারণ ওয়েবসাইট পরিচালনা,কনটেন্ট তৈরি, আপলোড, ভিজিটর বাড়ানো, ওয়েবসাইট মাকেটিং ইত্যাদি বিষয়ে যোগ্যতা এবং অভিজ্ঞতা না থাকলে হতাশ হতে হবে।
আপনি অন্য জনের কাছ থেকে কনটেন্ট তৈরি করে নিতে পারবেন। কিন্তু সেটা white  head seo কিনা জানবেন ও পরিক্ষা করবেন।

আশা করি আপনি  ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বে বিস্তারিত বিষয় জানতে পেড়েছেন। ভালো লাগলে কমেন্ট করে উতসাহ দিন ধন্যবাদ মশাই  এতক্ষণ সময় ব্যায় করে লেখাটি পড়ার জন্য

Article Categories:
blogger&blogging

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *